Coochbehar: দেনার দায়ে স্ত্রী, ৮ বছরের ছেলেকে খুন করে আত্মহত্যা কলেজ শিক্ষকের ?

 এবিএন শীল কলেজের এক শিক্ষক ও তাঁর স্ত্রী-পুত্রের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হল কোচবিহারের (Coochbehar) গুঞ্জবাড়ি এলাকায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘরের দরজা ভেঙে তাঁদের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃত কলেজ শিক্ষকের নাম উত্‍পল বর্মন (৩৮)।


তাঁর স্ত্রী অঞ্জনা দাস বর্মণ(৩২) ও ন'বছরের সন্তান অদ্রিশের দেহও উদ্ধার হয়েছে ঘর থেকে।

অপর্ণা সেনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা, বিএসএফ নিয়ে মন্তব্যের জেরকোচবিহারের গোসানিমারিতে উত্‍পলের বাড়ি। গুঞ্জবাড়িতে ভাড়া থাকতেন তিনি। দুদিন ধরে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পেরে বৃহস্পতিবার আত্মীয়রা গুঞ্জবাড়িতে খোঁজ নিতে আসেন। কিন্তু দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। বহুবার ডাকাডাকি করেও কারও সাড়া না মেলায় তাঁরা পুলিশে খবর দেন তারা। পরে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে তিনজনের দেহ উদ্ধার করেন। খুবই সজ্জন মানুষ হিসেবেই ছিল পরিচিতি ছিল উত্‍পলবাবুর। তাঁদের ঘর থেকে কোনওদিন কোনও অশান্তির আঁচ কেউ পাননি। তাই এমন ঘটনায় হতবাক গোটা পাড়া। উত্‍পলবাবু যে বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তাঁরাও অবাক। ঘটনার অভিঘাতে হতবাক তাঁর কলেজের সহকর্মীরাও। জেলার এসপি জানান, ঘর থেকে উত্‍পলবাবুর লেখা বারো পাতার একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। তার থেকেই জানা গেছে, সম্প্রতি বেশ কিছু টাকা ধার করে ফেলেছিলেন তিনি। তারই জেরে এমন কাণ্ড কী না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ সুপার বলেন, স্ত্রী ও সন্তানকে মেরে তিনি যে নিজেকে শেষ করে ফেলার চেষ্টা করছিলেন তারও উল্লেখ রয়েছে এই নোটে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দুপুর থেকে পদস্থ পুলিশ কর্তারা দফায় দফায় তদন্তের জন্য এই বাড়িতে আসেন। উত্‍পলবাবুর বাড়ির লোকজন অভিযোগ করেছেন তাঁদের খুন করা হয়েছে। তাই গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তাঁরা। পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা 'সুখপাঠ'

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ