Chandannagar Robbery: ভরদুপুরে স্বর্ণ ঋণ দানকারী সংস্থার অফিসে ডাকাতি! পুলিশের জালে ৩, বাকিদের খোঁজে জেলা জুড়ে নাকা চেকিং পুলিশের

নিজস্ব সংবাদদাতা: চন্দননগর লক্ষীগঞ্জের বাজারে মুথুট গোল্ড লোনের অফিসে ডাকাতি। গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে কয়েক জন দুষ্কৃতি পালিয়ে গেলেও তিনজন ধরা পরে যায়। 

ঘটনাস্থলে চন্দননগর পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা

গোল্ড লোনের অফিসের কর্মীদের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ডাকাতি হয়। বেরিয়ে যাবার সময় পুলিশ হাজির হয়। ঘিরে ফেলে দুস্কৃতিদের। তিনজন ধরা পরে যায়। দুটি মোটর বাইক একটি মারুতি গাড়ি ধরা পরে।

দুস্কৃতিদের ফেলে যাওয়া বাইক

গোল্ড লোন অফিসের নিরাপত্তা রক্ষীকে মারধর করে বেঁধে রাখে, অফিসের একজন কর্মীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। আরো কয়েকজনকে মারধোর করে। নিরাপত্তা রক্ষী বিষ্ণুপ্রিয় রায় বলেন,ওরা পাঁচ ছয়জন ছিল। আমি খাতায় সই করতে বলায় আমাকে পিস্তল ঠেকিয়ে ভিতরে ঢুকিয়ে মারধোর করে বেঁধে ফেলে।


অফিসে হইচই শুরু হলে সবাইকে পিস্তল দেখিয়ে ভয় দেখায়। একজন বিপদ ঘন্টি বাজিয়ে দিলে দুষ্কৃতিরা গুলি চালায়।গুলির শব্দে স্থানীয় বাসিন্দারা জরো হয়ে যায়। খবর পেয়ে ততক্ষণে চন্দনননগর থানার পুলিশ হাজির হয়ে যায়। দুষ্কৃতিরা পুলিশ দেখে পালানোর চেষ্টা করে। গুলি চালাতে শুরু করে।

জিটি রোডের পাশে দোতলায় গোল্ড লোনের অফিস। পিছন দিয়ে লাফিয়ে কয়েকজন পালিয়ে যায়। দুজনকে ধরে ফেলে পুলিশ। বাইকে নিয়ে পালানোর সময় এক দুস্কৃতিকে তুলোপট্টি ঘাটের কাছে ধাওয়া করে চুঁচুড়া থানার পুলিশ। সেই দুষ্কৃতি এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। যদিও সে পালাতে পারেনি।পুলিশের হাতে ধরা পরে যায়।

পলাতক দুষ্কৃতিদের খোঁজে জোর তল্লাসী শুরু করে পুলিশ।রাস্তায় নাকা চেকিং এর পাশাপাশি লঞ্চঘাট গুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ