একজনের অস্ত্রোপচার অন্যের Sasthya Sathi কার্ডের টাকা উধাও! একই নামে দুই মহিলার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে বিভ্রান্তি চন্ডিতলায়

নিজস্ব সংবাদদাতা: একজনের অস্ত্রোপচার অন্যের ফোনে মেসেজ, স্বাস্থ্য সাথীর টাকা কাটা নিয়ে বিভ্রান্তি চন্ডিতলায়।চন্ডীতলার জনাইয়ের বাসিন্দা মিনা সাঁতরা পরিচারিকার কাজ করেন। তার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড আছে। কয়েকদিন আগে তার মোবাইলে মেসেজ আসে চিকিৎসা বাবদ খরচ হিসাবে তার কার্ড থেকে ৫১৭০০  টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে।

কার্ড হাতে মীনা সাঁতরা যার ফোনে মেসেজ আসে

ডানকুনির যে বেসরকারী নার্সিংহোমের নামে এই টাকা কাটা হয়েছে সেখানে খোঁজ নিয়ে জানা যায় মিনা সাঁতরা নামে জনাইয়েরই এক বৃদ্ধার হাত ভেঙে যাওয়ায় অস্ত্রোপচার করা হয়।
মীনা সাঁতরা যিনি অস্ত্রোপচার করিয়েছেন

মিনা সাঁতরা লক্ষীর ভান্ডারে আবেদন করেন। ফর্ম জমা পড়ার মেসেজ তার মোবাইলে এসেছে কিনা তা জনাই পঞ্চায়েতের সদস্য অভিজিৎ কর্মকারকে দেখিয়ে জানতে চান। সদস্য মোবাইল খুলে দেখেন, লক্ষীর ভান্ডার জমা পড়ার কোন মেসেজ ঢোকেনি কিন্তু নার্সিংহোমে ভর্তি হওয়া এবং ডিসচার্জ হওয়ার মেসেজ রয়েছে। স্বাস্থ্যসাথী থেকে টাকা কাটার মেসেজ রয়েছে। মিনা সাঁতরা বিষয়টি পঞ্চায়েতে জানান।

স্বাস্থ্য সাথী দফতর থেকে আসা মেসেজ

খবর যায় চন্ডীতলা-২ ব্লকের বিডিওর কাছে। স্বাস্থ্য সাথীর দায়িত্বপ্রাপ্ত নোডাল অফিসারকে বিষয়টি জানানো হয়। কেন এরকম হলো সেটি খোঁজখবর নেওয়া হয়। ডানকুনির নার্সিংহোমে খোঁজ নিতে গিয়ে জানা যায় মিনা সাঁতরা নামে এক মহিলার হাতে অস্ত্রোপচার হয়েছে।
নার্সিংহোমের স্বাস্থ্য সাথীর বিল

তারও স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রয়েছে। কিন্তু সেই কার্ডের সঙ্গে মোবাইল নম্বর যুক্ত করা আছে যিনি চিকিৎসা করাননি সেই মিনা সাঁতরার। একই এলাকায় দুজনের বাড়ি হওয়ায় স্বাস্থ্য সাথী কার্ড তৈরির সময় কোন ভুল হয়েছিল বলে মনে করছেন প্রশাসনিক কর্তারা। এই সমস্যা মিটিয়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ