Maharashtra Rape: চরম পৈশাচিক ঘটনা, নাবালিকাকে ৬ মাসে ৪০০ জন ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ

দেশে সাম্প্রতিক রিপোর্ট হওয়া ধর্ষণকাণ্ডগুলির (Rape) মধ্যে এটি সবথেকে নৃশংস। চরম ভয়ঙ্করও বটে। কারণ মহারাষ্ট্রের বিড (Maharashtra, Beed) জেলায় এক নাবালিকাকে (Minor Girl Rape) গত ৬ মাসে ৪০০ জন ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ। নাবালিকা অভিযোগ দায়েরের চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সেই সময় তাঁকে এক পুলিশকর্মী যৌন নিপীড়ণ করে।


সেখানে নাবালিকা ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা (Pagnent) হয়ে পড়েন। বর্তমানে আশঙ্কা জনক অবস্থায় চিকিত্‍সাধীন রয়েছেন নাবালিকা।

সবশেষে দীর্ঘ অত্যাচার সহ্য করেও পুলিশের ওপর আর দেশের ন্যায় বিচারের ওপর আস্থা হারাননি তিনি। চলতি সপ্তাহে নাবালিকা পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে পেরেছেন। বাল্যবিবাহ নিষিদ্ধকরণ আইন, যৌন অপরাধ, থেকে শিশু সুরক্ষা আইন ও ভারতীয় দণ্ডবিধির ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানির ধারায় একাধিক মামলা দায়ের করা হয়েছে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর রিপোর্ট অনুযায়ী এই মামলায় এখনও পর্যন্ত মাত্র তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিড জেলার পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট রাজা রামাসামি বলেছেন ঘটনার তদন্ত চলছে।

Crime News: সোশ্যাল মিডিয়ায় বন্ধুত্বের টোপ দিয়ে ২ নাবালিকাকে অপহরণ, তারপর কী হল

নৃশংস বর্বর অত্যাচারের কাহিনি
নির্যাতিত নাবালিকার বয়ান অনুযায়ী কয়েক বছর আগেই তিনি তাঁর মাকে হারিয়েছিলেন। তারপর তার বাবা প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার আগেই তাঁর বিয়ে ঠিক করে বিয়ে দিয়েদিয়েছিল। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির অত্যাচার ও স্বামীর মারধর সহ্য করতে না পেরে স্বামীর বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে ফিরে যায়। কিন্তু মেয়েটির বাব ততক্ষণে দ্বিতীয় বিয়ে করেছিল। মেয়েটিতে ঘরে তুলতে রাজি ছিল না। এই অবস্থায় সব হারিয়ে মেয়েটি রাস্তায় নামে ভিক্ষেবৃত্তির জন্য।

Afghan Woman: তালিবান কমান্ডারের সঙ্গে সঙ্গমে আপত্তি, মহিলার ভিডিও পাল্টা ভিডিও আফগান সরকারের

বিড জেলার আমবাজোগাইয়ের একটি বাসস্ট্যান্ডে ভিক্ষা করতে শুরু করেন নাবালিকা। সেই সময়ই তিনি প্রথম নির্যাতিতা হন। শিশু কল্যাণ কমিটির কাছে দেওয়া বিবৃতি অনুযায়ী নাবালিকা একাধিক মানুষের দ্বারা নির্যাতিতা হয়েছেন। তাঁকে একসঙ্গে অথবা আলাদা আলাদাভাবে ধর্ষণ করা হয়েছিল। অভিযোগ জানাতে থানায় গিয়েছিলেন। পুলিশ কোনও সাহায্য করেনি। উল্টে সেখানে পুলিশ তাঁকে ধর্ষণ করে।

Tripura: ২ মহিলা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে FIR, পাল্টা পুলিশের বিরুদ্ধে ভয় দেখানোর অভিযোগ

নাবালিকার দাবি তাঁকে ৪০০ জন ধর্ষণ করেছে গত ৬ মাসে। তাঁকে চাকরি দেওয়ার নাম করেও দুজন তাঁকে ধর্ষণ করেছিল। বর্তমানে তিনি গর্ভাবতী। নাবালিকা ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তাই জাতীয় শিশু কল্যাণ কমিটির সদস্যরা ভ্রুণ হত্যা বা গর্ভপাতের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় তিন জনকে আটক করা হয়েছে।

ডম্বিভালি গণধর্ষণকাণ্ড
এক আগে চলতি বছর জানুয়ারিতেএক নাবালিকা অভিযোগ করেছিল তাঁকে ব্ল্যাকমেইল করে এই এলাকারই একাধিক স্থানে নিয়ে গিয়ে ৩৩জন ধর্ষণ করেছে। তাঁর প্রেমিকও এই ঘটনায় জড়িত রয়েছে। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ