Rajib Banerjee: হাওড়ায় ঢুকতে দেব না, রাজীব ব্যানার্জিকে চ্যালেঞ্জ প্রসূনের

 আজকাল ওয়েবডেস্ক: স্বস্তি নেই। বিরোধিতা যেন তাড়া করে বেড়াচ্ছে রাজীব ব্যানার্জিকে। আর এই বিরোধিতা আসছে দলের ভেতর থেকেই। শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জির পর এবার সুর চড়ালেন হাওড়া লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ প্রসূন ব্যানার্জি। হাওড়ায় দলেরই এক সভায় রাজীব ব্যানার্জির প্রবল সমালোচনা করেন তিনি।

রাজীবের উদ্দেশে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে তিনি বলেন, 'হাওড়ায় ঢুকতে দেব না। যত বড় মাতব্বর হও।'

শ্লেষাত্মক স্বরে প্রাক্তন এই ফুটবলার বলেন, 'সেদিন তোমরা ভাবলে দিদি (মমতা ব্যানার্জি) হেরে যাবে। দিদি যতদিন জীবিত থাকবেন ততদিন থাকবেন। কেউ হারাতে পারবে না। প্লেনে উড়ে গেলে। কী সুন্দর খাওয়াদাওয়া পেলে। আবার হারার পর দিদির ছবি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছ। কোনও কারণেই আমি মানতে পারব না। কাগজে দেখলাম উনি আবার বলেছেন আমাকে সবাই ভুল বুঝিয়েছে। ৫০ বছর বয়সে ভুল বুঝলেন কী করে? মমতাদি খাইয়ে-পরিয়ে বড় করল। ভুলে গেলেন? মানতে পারব না। যদি দরকার হয় দল যদি বলে তবে ছেড়ে চলে যাব। মমতা ব্যানার্জির পায়ের তলায় বসে থাকব।'
চ্যালেঞ্জ ছুড়ে এই সাংসদের দাবি, তিনি যতদিন বেঁচে আছেন ততদিন হাওড়ায় কাউকে আসতে দেওয়া হবে না।

শুভেন্দুর পাড়ায় বিজেপি নেতার পুজোয় হঠাত্‍ই হাজির কুণাল ঘোষ, জল্পনা তুঙ্গে

গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের বেশ কয়েকজন নেতার মতো বিজেপিতে যোগ দেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জি। যদিও বিধানসভা নির্বাচনে ডোমজুড় কেন্দ্রে তাঁকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে দেন তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণ ঘোষ। এরপরেই বিজেপির সঙ্গে দূরত্ব বাড়ান তিনি। যোগাযোগ করতে থাকেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দের সঙ্গে। শেষ পর্যন্ত ত্রিপুরায় অভিষেক ব্যানার্জির উপস্থিতিতে ফের তৃণমূলে অন্তর্ভুক্তি হয় তাঁর। যেদিন রাজীবের অন্তর্ভুক্তি হয় সেদিনই বিষয়টি নিয়ে সরব হন শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জি।
এদিন সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তরে প্রসূন বলেন, 'দল যদি হাওড়ায় রাজীব ব্যানার্জিকে কোনও দায়িত্ব দেয় তবে সেটা আমার পক্ষে মেনে নেওয়া কঠিন হবে। ব্যক্তিগত রাজীব আমার কাছে কোনও নেতা বা সদস্য নয়।' আগামী দিনে সাংসদ কি রাজীবের হাওড়ায় ঢোকা নিয়ে বিরোধিতা করবেন? প্রসূন বলেন, 'হাওড়ার সাধারণ মানুষই রাজীবকে আর ঢুকতে দেবে না।'

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ