চোর সন্দেহে প্রৌঢ়কে বেধড়ক মার, বিপাকে পুলিশ আধিকারিক

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: চোর সন্দেহে এক পঞ্চাশোর্ধ্ব ব্যক্তিকে বেধড়ক মার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও ভাইরাল হতেই বিপাকে বীরভূমের (Birbhum) ইলামবাজার থানার এসআই। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে এক সিভিক ভলান্টিয়ারকে।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার। ওইদিন ইলামবাজার থানার শালডাঙা এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি চুরির অভিযোগে ৫ জনকে ধরে ফেলে স্থানীয়রা। বলপূর্বক তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় একটি ক্লাবে। সেখানেই যান ইলামবাজার থানার এসআই রঞ্জিত মণ্ডল ও সিভিক ভলান্টিয়ার আবদুল জব্বর। চুরির অভিযোগে ধৃত এক প্রৌঢ়কে সেখানে বেধড়ক মারধর করেন এসআই। গোটা ঘটনাটি মোবাইলে রেকর্ড করেন অনেকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে সেই ভিডিও। এরপরই নড়েচড়ে বসে পুলিশ-প্রশাসন। প্রশ্ন ওঠে, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার আগে কেন মারধর করা হল ওই প্রৌঢ়কে। ওই ঘটনায় সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে সিভিক ভলান্টিয়ারকে। অভিযুক্ত এসআইয়ের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: COVID-19 Updates: গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় সংক্রমিত ৬২০, উঃ ২৪ পরগনায় একদিনে করোনায় মৃত ৪]

উল্লেখ্য, ইলামবাজারে বিদ্যুৎ খুঁটি চুরির ঘটনায় আটক পাঁচজনকে রবিবার বোলপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। ধৃতদের ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাঁদের নাম শেখ সামিম, শেখ সাহিদুল, শেখ আশাবুল, শেখ শানু, শেখ মিরাজুল।

এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী বলেন, ৫ জন চুরি করতে এসে ধরা পড়ে। গ্রামবাসীরা তাদের যাতে মারধর না করে তার জন্য পুলিশ অন্য জায়গায় সরিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। শুনেছি সেখানেই পুলিশের কয়েকজন চোর সন্দেহে ধৃতদের মারধর করেছে। পুরো বিষয়টির বিভাগীয় তদন্ত করা হবে।

[আরও পড়ুন: ‘জাওয়াদে’র প্রভাবে সোমবারও ভিজবে কলকাতা-সহ বিভিন্ন জেলা, কবে স্বাভাবিক হবে পরিস্থিতি?]



from রাজ্য​ – Sangbad Pratidin https://ift.tt/2ZULORR

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ