বন্ধু হঠাৎ হোয়াটসঅ্যাপে টাকা চাইছে? সাবধান, নিমেষেই নিঃস্ব হতে পারেন আপনি

 করোনাকালে সংক্রমণ এড়াতে প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরোচ্ছেন না অনেকেই। ব্যাংকের কাজ হোক বা অন্য কিছু, সুযোগ থাকলে অনলাইনেই সে কাজ সেরে ফেলার চেষ্টা করেন সতর্করা। বর্তমানে আবার আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত যেকোনও কাজ হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমেও সেরে নেওয়া সম্ভব। আর সেই সুযোগেই জাল বিস্তার করছেন প্রতারকরা। হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। কলকাতা পুলিশের এ বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করা হয়েছে।

কলকাতা পুলিশের জয়েন্ট সিপি ক্রাইম টুইট করে শুক্রবার সতর্কতা জারি করেন। টুইটের শুরুতেই ব্যাংক জালিয়াতি রুখতে সচেতনতা বার্তা বলেই উল্লেখ করা হয়। তারপর টুইটে লেখা হয়, “আপনারা কি অজানা নম্বর থেকে প্রিয় বন্ধুর ছবি থাকা হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট থেকে কোনও মেসেজে পেয়েছেন? সে কি আপনার থেকে চিকিৎসার কথা জানিয়ে কিংবা অন্য কোনও প্রয়োজনে টাকা চাইছে? ব্যাংকের তথ্য দিয়েছে? উত্তর ‘হ্যাঁ’ হলে আজই সাবধান হোন। দয়া করে ওই ব্যাংক সংক্রান্ত তথ্য অনুযায়ী একটি টাকাও পাঠাবেন না। আদৌ আপনার পরিচিত মানুষ টাকা চাইছেন কিনা, তা খতিয়ে দেখুন।”


এই ধরের কোনও সন্দেহজনক মেসেজ পাওয়ামাত্রই কলকাতা পুলিশের সাইবার সেলে অভিযোগ জানানোর কথাও বলা হয়েছে। একটি যোগাযোগ নম্বরও কলকাতা পুলিশের তরফে দেওয়া হয়েছে। নম্বরটি হল: ৯৮৩৬৫১৩০০০। কিংবা jtcpcrime@kolkatapolice.gov.in এই ই-মেল আইডিতে অভিযোগও জানাতে পারেন।

বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশিরভাগ সময়ই কাটে আমাদের। তার যেমন ভাল এবং মন্দ দুইই রয়েছে। যদিও তা নিয়ে বিস্তর মতবিরোধ রয়েছে। তবে সেই সোশ্যাল মিডিয়াকেই যে একদল মানুষ  লোক ঠকিয়ে টাকা হাতানোর রাস্তা হিসাবে বেছে নিয়েছে, সে বিষয়ে ওয়াকিবহাল পুলিশমহলও। সে কারণেই আগেভাগে সতর্কতা জারি কলকাতা পুলিশের। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ