নিখোঁজ হওয়ার ৩দিন পর উদ্ধার জয়গাঁ থানার ASI-এর দেহ, মৃত্যুর কারণ ঘিরে রহস্য

 তিনদিন পর উদ্ধার হল জয়গাঁ (Jaigaon) থানার নিখোঁজ ASI-এর দেহ। রবিবার সকালে দলসিংপাড়া ১০ নম্বর এলাকা থেকে মৃতদেহ উদ্ধার হয়। রাস্তার পাশে নালার ঝোপে থেকে দেহটি পড়ে থাকতে দেখা যায়। প্রাথমিকভাবে সকলের অনুমান খুন করা হয়েছে ওই পুলিশ আধিকারিককে। কারও দাবি, বালি মাফিয়ারাই খুন করেছে ওই পুলিশ আধিকারিককে। কে বা কারা এই ঘটনায় জড়িত, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

৫২ বছর বয়সি ওই এএসআই ভারত-ভুটান সীমান্তের জয়গাঁ থানার পুলিশ কোয়ার্টারেই থাকতেন। তাঁর বাড়ি কোচবিহারে। বুধবার জয়গাঁ থানা থেকে বাইকে করে জয়গাঁ থানার দলসিংপাড়াতে ট্রাফিকের দায়িত্ব সামলাতে রওনা হয়েছিলেন। কিন্তু দলসিংপাড়া ব্রিজ পার হওয়ার পরেই তিনি নিখোঁজ হয়ে যান। সুইচড অফ হয়ে যায় তাঁর মোবাইলের।

দিনভর খোঁজাখুঁজির পরে তাঁকে পাওয়া যায়নি। বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে একটি নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়। জয়গাঁ থানায় পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন এএসআইয়ের স্ত্রী সীতা কর। ডিএসপি ট্রাফিকের নেতৃত্বে ঘটনার তদন্তও শুরু হয়। আলিপুরদুয়ারের পুলিশ সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে জানান সেকথা।

এভাবেই কেটে যায় পরপর তিনদিন। রবিবার সকালে দলসিংপাড়া ১০ নম্বর এলাকা থেকে মৃতদেহ উদ্ধার হয়। রাস্তার পাশে নালায় পড়েছিল দেহটি। খবর পাওয়ামাত্রই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। পুলিশ আধিকারিকের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, খুন করা হয়েছে তাঁকে। যদিও ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত এ বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছুই বলা যাবে না বলেই জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। বালি মাফিয়ারা এই ঘটনায় জড়িত বলেই মনে করা হচ্ছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হবে বলেই আশ্বাস তদন্তকারীদের।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ