Ticker

6/recent/ticker-posts

Municipal Vote: সকাল থেকেই অশান্তি, ইভিএম ভাঙচুর, এজেন্ট বের করে দেওয়ার অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক : দ্বিতীয় তথা শেষ দফা পুরভোট শুরু হতেই অশান্তির খবর জেলায় জেলায়। রাজপুর-সোনারপুরে বিরোধী এজেন্টদের মারধরের অভিযোগ। পাশাপাশি কাঁথিতে তৃণমূলের বিরোধী তাণ্ডবের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। পাশাপাশি একাধিক জেলায় বিরোধী এজেন্টদের বসতে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে, রবিবার সকাল ৭টা থেকে শুরু হয়েছে রাজ্যের দ্বিতীয় তথা চূড়ান্ত দফায় পুরসভার ভোট গ্রহণ (Civic Polls 2022)। ১০৮টি পুরসভার ২১৭১টি ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। জানা গিয়েছে, এদিন ১০৮টি পুরসভার মোট ২২৭৬টি পুরসভায় ভোট গ্রহণ থাকলেও, ইতিমধ্যে ১০৩টি ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে তৃণমূল (TMC)। দুটি ওয়ার্ডের প্রার্থীর মৃত্যুর খবর মিলেছে। তাই ১০৫টি ওয়ার্ডে ভোট গ্রহণ হচ্ছে না।

কমিশন সূত্রে খবর, দমদমের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিআই প্রার্থী এবং ভাটপাড়ার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিএম প্রার্থী প্রয়াত হয়েছেন। পাশাপাশি এই ভোটকে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে ডিআইজি র‍্যাঙ্কের ১৭ জন পুলিসকর্তাকে ২০টি জেলার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বাড়তি গুরুত্ব দিয়ে শনিবার রাজ্য নির্বাচন কমিশন উচ্চপদের স্পেশাল পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক করেছে। অভাব-অভিযোগ-সহ যেকোনও সাহায্যে বিশেষ কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। সেই নম্বর- ২২৯০৪০৪০/৪১।


ইতিমধ্যে হাইকোর্টের নির্দেশে পর্যবেক্ষকের সংখ্যা বাড়িয়েছে কমিশন। ইতিমধ্যে আদালত পর্যবেক্ষণে বলেছে, রবিবারের ভোটে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সম্পূর্ণ দায়বদ্ধ থাকবে কমিশন। এদিকে, রাজ্যের ২০টি জেলায় ছড়িয়ে থাকা ১০৮টি পুরসভা নির্বাচন কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে করতে চেয়ে হাইকোর্ট-সুপ্রিম কোর্ট অবধি বল নিয়ে গিয়েছে বিজেপি।


তবে দুই আদালত খারিজ করে দিয়েছে বিজেপি আবেদন। এই অবস্থায় এদিন ৪৪ হাজার পুলিশকে মাঠে নামিয়ে ১০৮টি পুরসভার নির্বাচন করছে নির্বাচন কমিশন। আর সেই কারনেই প্রতিটি বুথের নিরাপত্তায় থাকছে কড়া পুলিশি ঘেরাটোপ। যে ভোটকেন্দ্রের বুথের সংখ্যা যতবেশি সেই সেই জায়গায় তত বেশি পুলিশি নিরাপত্তা।


একঝলকে দেখুন কমিশনের ভোটব্যবস্থা:


১০৮টি ওয়ার্ডের ২১৭১ ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ


ভোট কর্মীর সংখ্যা ৪৩,২৫২, রিজার্ভ প্রায় ৫০ হাজার


ভোট শুরুর এক ঘণ্টার মধ্যেই উত্তেজনা বারাসাতে। এই পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বুথে ঢুকে ইভিএম (EVM) ভাঙচুর। এই ঘটনায় অভিযুক্ত বিজেপি প্রার্থী। পুলিসের সঙ্গে বচসা বিজপি প্রার্থীর। পাল্টা ভোট লুঠের অভিযোগ বিজেপি প্রার্থীর। একইভাবে সাউথ দমদম মিউনিসিপ্যালিটি ২২ নম্বর ওয়ার্ডে মতিঝিল গার্লস স্কুলে ঝামেলা। ১৮৪ নম্বর বুথের সামনে জমায়েতের অভিযোগ। তৃণমূল প্রার্থী অশ্মি পোদ্দারের ব্যাচ লাগিয়ে ঘুরছে প্রচুর ছেলে। এমনটাই বিরোধীদের অভিযোগ।


 এমনকি, বিরোধী দলের এজেন্টকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। পাশাপাশি দুই নম্বর ওয়ার্ড, কাঁথি পুরসভার রহমানিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথে উত্তেজনা। বুথের ১০০ মিটারের মধ্যে বেআইনি জমায়েত। নির্বিকার পুলিশ, অভিযোগ বিজেপির। এমনকি, একাধিক জেলায় সংবাদ মাধ্যমকে ঘাড়ধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়ার অভিযোগ। কলকাতা লাগোয়া কামারহাটি এবং উত্তর দমদমেও বুথের বাইরে জমায়েত ঘিরে উত্তেজনা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ